আজ আমাকে দেখতে আসবে মা বলছে না মাযপরার দরকার নাই কিন্তু না মাজ পড়তে গিয়ে মারা গেল যুবতী অতপর

দিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুতে আবেগঘন টুইটে ভারি হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। টুইটারে তারকা সব ক্রীড়াবিদরা জানিয়েছেন প্রিয় ফুটবলারের অন্তিম যাত্রায় শোক।সর্বকালের সেরা দৌড়বিদ উসাইন বোল্ট ম্যারাডোনার মৃত্যুতে টুইট করেন, ‘শান্তিতে ঘুমান কিংবদন্তি।’ইতালিয়ান ক্লাব নাপোলিকে প্রায় একাই লিগ চ্যাম্পিয়ন করিয়েছেন ম্যারাডোনা। নেপলসে ‘ম্যারাডোনা’—অনেকের কাছেই ধর্ম। নাপোলির টুইট, ‘সব সময় আমাদের হৃদয়ে থাকবে। বিদায়, ডিয়েগো।’ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি রোমারিও-র টুইট, ‘আমার বন্ধু চলে গেল। ম্যারাডোনা, কিংবদন্তি! বল পায়ে তিনি বিশ্বজয় করেছিলেন, আনন্দ ও অনন্য ব্যক্তিত্বও ছিল। আমি অনেকবারই বলেছি কথাটা, মাঠে যত খেলোয়াড় দেখেছি তাদের মধ্যে ম্যারাডোনাই সেরা।’বোকা জুনিয়র্সের টুইট, ‘চিরকালীন ধন্যবাদ। চিরকালের ডিয়েগো।’ স্পেনের বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াসের টুইট, ‘ফুটবলের জন্য দুঃখের দিন। ম্যারাডোনা চলে গেছেন। শান্তিতে থাকুন খেলাটির প্রতিভা।’পিএসজি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পের টুইট, ‘শান্তিতে ঘুমান কিংবদন্তি। আপনি চিরকাল আমাদের হৃদয়ে থাকবেন। পুরো পৃথিবীকে আনন্দ দেয়ার জন্য ধন্যবাদকিংবদন্তি ফুটবল সম্রাট দিয়েগো ম্যারাডোনা মারা গেছেন। তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে ম্যারাডোনার আত্মার শান্তি কামনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।এক শোকবার্তায় শেখ হাসিনা বলেন, ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই আর্জেন্টাইন খেলোয়াড় বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীদের হৃদয়ে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন এবং যুগে যুগে তাঁর ক্রীড়া নৈপুণ্য ভবিষ্যত ফুটবল খেলোয়াড়দের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।প্রধানমন্ত্রী এই ফুটবল মহানায়কের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।গতকাল বুধবার (২৫ নভেম্বর) রাতে ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। মৃত্যুর সময় এই কিংবন্দন্তির বয়স হয়েছিলো ৬০ বছর।গত ৩০ অক্টোবর ৬০তম জন্মদিন উদযাপন করেন ম্যারাডোনা। তার কয়েক দিন পর নভেম্বরের শুরুর দিকে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সর্বকালের সেরা ফুটবলার। তার মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেঁধেছিল। চিকিৎসকরা দাবি করেছিলেন, ম্যারাডোনার মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার করা হয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *