ত্রি’পল প্রেমে আ’ক্রা’ন্ত কলেজ ছাত্রী, অতঃপর মাথা ফা’টি’য়ে দিল ২য় প্রেমিক

ত্রিকোণ প্রেমের জেরে আক্রান্ত হল এক কলেজ ছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ক্যানিং থানার বঙ্কিম সরদার কলেজে। ঘটনায় আক্রান্ত ছাত্রীর নাম পূজা সরদার। পুজা বঙ্কিম সরদার কলেজের কলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। আহত পুজাকে উদ্ধার করে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে তারই সহপাঠীরা।অভিযোগ পূজার সহপাঠী নবনিতা নামে এক ছাত্রী কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র অমিত হালদারের সাথে ভালবাসার সম্পর্ক গড়ে তোলে। দীর্ঘদিন অমিতের সাথে সম্পর্কের জেরে নবনিতাকে অনেক উপহার ও দিয়েছিল অমিত। একে অন্যের বাড়িতে যাতায়াত ও ছিল। সম্প্রতি নবনিতা কলেজের অন্য এক ছাত্রের সাথে নতুন করে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে তোলে। এই সম্পর্কের কথা কোনভাবে জানতে পেরে যায় অমিত।নবনিতার অভিযোগ নতুন বন্ধুর সাথে তার সম্পর্কের কথা অমিতকে জানিয়ে দেয় পুজা। এই অভিযোগ তুলেই কার্যত সোমবার দুপুরে কলেজের গেটের সামনে পুজা সরদারের উপর হামলা চালায় নবনিতা ও তার পরিবারের লোকেরা। ঘটনায় গুরুতর জখম হয় ঐ ছাত্রী। মাথা ফেটে রক্ত বের হতে থাকে। খবর পেয়ে পূজার বাড়ির লোকজন ও পৌঁছয় কলেজে। কিন্তু ততক্ষণে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। এই ঘটনায় কলেজ চত্বরে উত্তেজনা ছড়ালে ঘটনাস্থলে আসে ক্যানিং থানার পুলিশ
আরও পড়ুন=একমাত্র বাংলাদেশের নাগরিকেরা এই দেশটিতে ফ্রি ভিসা পান। অর্থাৎ আপনি যদি বাংলাদেশি নাগরিক হয়ে থাকেন, তাহলে এই দেশে যেতে আপনাকে কোনো ঝামেলাই পোহাতে হবে না। সেখানে ঘুরতে গিয়ে কোনো কারণে যদি হাসপাতালে যেতে হয়, তাহলে আপনি দেখবেন সেখানকার ডাক্তার, নার্স থেকে শুরু করে সব কর্মচারী মেয়ে।
তখন আপনি হয়তো ভাববেন, আপনি কোনো মহিলা হাসপাতালে ঢুকে পড়েছেন। কিন্তু না, সেখানে নারী-পুরুষ সব রকমের রোগী দেখতে পাবেন আপনি। আসলে এদের বেশিরভাগ হাসপাতাল নারীরা চালান। শুধু কি হাসপাতাল? হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে রাস্তায় এলে দেখবেন, দোকানপাটও চালাচ্ছেন নারীরা।হোটেলের মালিক, যানবাহনের ড্রাইভার, রান্নার কুকসহ যাবতীয় কাজে নারীরাই সর্বেসর্বা। একটু খোঁজ নিলেই জানতে পারবেন, পরিবারের, বাড়ির, গবাদি পশু এবং জমির মতো সব সম্পত্তির মালিকানা পায় পরিবারের বড় মেয়েরা।
এতে করে ভাবতে পারেন, তবে কি এখানে পুরুষ কম আছে নাকি? তাও নয়। এদেশে ৫৩ শতাংশই পুরুষ। আসলে দেশটিতে সবাই কাজ করেন। নারী-পুরুষে কোনো ভেদাভেদ নেই সেখানে। তবে তারা নারীদেরকে বেশি সম্মান দেয়। এই কাজটি শুধু পুরুষদের বা এই কাজটি শুধু নারীরাই করবে, তা কোথাও ভাগ করা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *